সর্বশেষবিশেষ

আগামী তিন বছরেও খুলবে না শাহবাগ শিশুপার্ক!

প্রায় পাঁচ বছর ধরে বন্ধ রয়েছে রাজধানীর শাহবাগ শিশু পার্ক। ২০১৯ সালের আগামী জানুয়ারি থেকে শিশু পার্কটি বন্ধ রয়েছে।

আগামী
খবরের অন্তরালে

আধুনিক যন্ত্রপাতি স্থাপন ও উন্নয়নের জন্য এটি বন্ধ থাকলেও এখনো কাজ শেষ হয়নি।আগামী আবারও যুক্ত হয়েছে প্রকল্প। এই প্রকল্প শেষ হতে আরও তিন বছর সময় লাগবে। এই দীর্ঘ সময়ে শিশু-কিশোররা বিনোদন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালের আগামী জানুয়ারি থেকে শিশু পার্কটি বন্ধ রয়েছে। এরপর ডিএসসিসির কর্মকর্তারা পার্কের সামনে নোটিশ ঝুলিয়ে বন্ধ ঘোষণা করেন। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা স্তম্ভ (তৃতীয় পর্যায়) নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় শিশুপার্কের উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের কাজ চলছে।

আগামী
খবরের অন্তরালে

কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কেন্দ্রীয় শিশু পার্ক জনসাধারণের জন্য বন্ধ থাকবে। আগামী ২০১৯ সালের প্রথম দিকে, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় শিশুপার্ক প্রতিস্থাপনের জন্য একটি প্রকল্পের কাজ শুরু করে। আগামী পার্কটি ডিএসসিসি কর্তৃক পরিচালিত হলেও মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের অংশ হিসেবে ৬০০ গাড়ির আন্ডারগ্রাউন্ড পার্কিং করা হচ্ছে। নথিতে বলা হয়েছে যে কাজটি ২০২৪সালের শেষ নাগাদ শেষ হবে, তবে এটি সন্দেহের মধ্যে রয়েছে। আগামী নতুন নকশা অনুযায়ী শিশু পার্ক আর আগের মতো নেই।

এর পাশে একটি রাস্তা থাকবে যেখানে আগে টিকিট কাউন্টার ছিল। আগামী যানবাহন দুটি পথ দিয়ে বেসমেন্টে প্রবেশ করবে। আগের কাউন্টার সাইট থেকে রাস্তা সোজা যাবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। রাস্তার দুই পাশে থাকবে পানির ফোয়ারা। টিকিট কাউন্টারটি পার্কের ভিতরে পূর্ব দিকে থাকবে। দর্শনার্থীরা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের বিপরীত দিক থেকে পার্কে প্রবেশ করে এবং চিলড্রেন পার্ক কাউন্টারের দিকে সামান্য পশ্চিমে হেঁটে যায়।

আগামী
খবরের অন্তরালে

শিশু পার্কে আধুনিক রাইড বসানোর জন্য ২০২১ সালের ৩০ ডিসেম্বর ডিএসসিসির বোর্ড সভায় ‘হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী শিশু পার্ক’ নামের একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। আগামী ৬০৩ কোটি ৮১ লাখ টাকার এই প্রকল্প সম্প্রতি পাস করেছে একনেক। যেখানে প্রকল্পটি জুলাই ২০২৩ এ শুরু হবে এবং ২০২৬ সালের জুনে শেষ হবে বলে জানা গেছে।

তবে দরপত্র আহ্বান ও ঠিকাদার নিয়োগ করে প্রকল্পটি শেষ করতে কমপক্ষে পাঁচ বছর সময় লাগতে পারে। সে অনুযায়ী ২০২৮ সালে কাজ শেষ হতে পারে। আগামী শিশুপার্কের আধুনিকায়নে মোট ১৫টি অত্যাধুনিক রাইড যুক্ত করা হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে সুপার এয়ার রেস, টি কাপ ৯, ফ্লাইং ক্যাসেল, মিনি কোস্টার, বাম্পার কার, ম্যাজিক বাইক, সুপার হ্যাপি সুইং, মেরি-গো-রাউন্ড এবং ওয়াটার ম্যানিয়া।

আরও পড়ুন

১লাখ টাকায় ২ জন মানুষ ৫ টি দেশে ভ্রমণ করতে পারবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button