আঞ্চলিকসর্বশেষ

কৃষকের মাঝে বিনা মূল্যে গম বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরণ।

আয়নাল হক, রৌমারী কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

৩০ নভেম্বর, ২০২৩, বেলা ১২ টার সময়, ইসি সি সি পির পদক্ষেপ এ -ফ্লাড ও প্রকল্প অফিস প্রাঙ্গণ, রৌমারী, কুড়িগ্রামে একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্যোগ উদ্ভাসিত হয়েছে। এতে গম বীজ এবং রাসায়নিক সার মুল্য ছাড়া ৫৩১ জন গরীব কৃষকদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে।কৃষক

এই অভিযানে রৌমারী উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ৫৩১ জন গরীব কৃষকদের কাছে গম বীজ এবং রাসায়নিক সার বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। এ উদ্যোগে উপস্থিত ছিলেন রৌমারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কাইয়ুম চৌধুরী, রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান ইমান আলী এবং অন্যান্য।

বিতরণের সময় এবং প্রকাশ্যে উপস্থিত ছিল রৌমারী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কাইয়ুম চৌধুরী, রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান ইমান আলী এবং অন্যান্য। তারা বলেন, এই উদ্যোগের মাধ্যমে মানুষের জীবনে প্রয়োজনীয় সামগ্রী অনুভূত হচ্ছে। গরীব কৃষকরা ৫০০০ টাকার মূল্যের প্যাকেজ পেয়ে উত্সাহিত।

এ উদ্যোগে রৌমারী উপজেলার প্রতি সুকুমার বিষ্ট, প্রবাসী বাঙালি সমাজ বলছে, “আমরা জোট দিয়ে সবাই এই পথে চলতে চাই। মানুষের ভালোবাসা এবং সাহানুভূতি আমাদের একত্রিত করতে সাহায্য করতে হবে।”

এটি ছাড়াও, ব্রাঞ্চ ম্যানেজার শাহিন আলম, হারুন আর রশিদ সাদেকুল ইসলাম, রাজু বাবু, সোহেল রানা, আব্দুর রউফ, এবং অন্যান্য উদ্যোক্তারা এই উদ্যোগের অংশীদার হন। তাদের মাধ্যমে প্রকাশ পাচ্ছে মানুষের এককীভূত আবাসন এবং জীবনযাত্রার প্রশান্তির অমূল্য মূল্য।কৃষক

এ রকমের সামাজিক ও আর্থিক উন্নতির দিকে এই প্রয়াসগুলি এক নজরে মূল্যায়ন করতে হবে। এই প্রয়াসের মাধ্যমে সকলে এক পর্যায়ে উন্নত হতে পারে, এবং কৃষক সমুদায়ের উন্নতি সফলভাবে আগামী দিনের জন্য একটি সাধারিত স্থিতি তৈরি হতে সহায়ক হতে পারে।

এই সত্যিই একটি অনৌপচারিক উদাহরণ, যা সাম্প্রদায়িকভাবে উন্নত এবং দক্ষ ব্যক্তিদের কাজে লাগতে পারে। রৌমারী উপজেলার কৃষকদের প্রতি এই প্রয়াসটি একটি সাংস্কৃতিক এবং আর্থিক পরিবর্তনের সূচনা করতে পারে, যা তাদের জীবনযাত্রার দিকে একটি নতুন দিকে নেতৃত্ব দেতে সহায় করতে পারে।

রৌমারী উপজেলা চেয়ারম্যান ইমান আলী একই বিচারে এই প্রয়াসের গুরুত্ব উল্লেখ করেন এবং বলেন, “এই প্রকারের প্রয়াস আমাদের সম্প্রদায়ের জীবনযাত্রার জন্য একটি নতুন আলোকের দিকে নেতৃত্ব দেতে সাহায্য করতে পারে, যা চাইতেও গুরুত্বপূর্ণ।”কৃষক

প্রকল্পের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা, যারা এই কার্যক্রমে মোজাইক প্রদানে সহায়ক হন। এই যাত্রায় অনেক সক্ষম এবং দক্ষ ব্যক্তিদের মোজাইকে প্রদান করা হয়েছে যারা গরীব কৃষকদের কাছে সরাসরি এবং মূল্যবিনা বিতরণ করতে সক্ষম হন।

এই প্রয়াসের মাধ্যমে একটি নতুন জীবনের আশা এবং অপেক্ষা করা হচ্ছে যা রৌমারী উপজেলার গরীব কৃষকদের জীবনে একটি বড় উত্তরণ হতে পারে। এই ধারাবাহিক অগ্রগতির মাধ্যমে তাদের জীবনযাত্রার শর্ত এবং সম্ভাবনার সীমা সম্পর্কে আশা করা যাচ্ছে।

আরও খবর,
চিলমারী‌তে বসুন্ধরা শুভসং‌ঘের শিক্ষা উপকরণ ও গা‌ছের চারা বিতরণ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button