আঞ্চলিকসর্বশেষ

চিলমারী-রৌমারী রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়েছে

এক মাস না হতেই চিলমারী-রৌমারী রুটে

কুড়িগ্রামবাসীর দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ব্রহ্মপুত্র নদ দিয়ে চিলমারী -রৌমারী সমুদ্র বন্দরে ফেরি চলাচল শুরু হলেও এক মাস পর ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় অর্ধশতাধিক মালামাল নৌকায় পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। সমস্যায় পড়েছেন শ্রমিক ও চালকরা।

 

ফেরী চলাচল বন্ধ
রৌমারী ফেরি ঘাট

তবে রৌমারী ফেরি ঘাটে পল্টন র‌্যাম্পের নিচ দিয়ে মাটি ধসে যাওয়ায় সাময়িকভাবে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে কর্মকর্তাদের দাবি।
সারাদেশে সমুদ্রপথে কুড়িগ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে এবং চিলমারী বন্দরের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ফেরি চালু ও বন্দরের উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করা হয় ২০ সেপ্টেম্বর। কিন্তু কর্তৃপক্ষের তদারকির অভাবে মাত্র ২৫ দিন পর ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

ফেরী কুঞ্জ লতা
ফেরী কুঞ্জ লতা

জানা গেছে, কুঞ্জলতা ও বেগম সুফিয়া কামাল নামের দুটি ঘাট দিয়ে নিয়মিত রৌমারী-চিলমারী ঘাট দিয়ে বিভিন্ন ধরনের পরিবহন ও যাত্রী পারাপার হয়। শনিবার বিকেলে চিলমারী ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া বেগম সুফিয়া কামাল ফেরিটি রৌমারী ঘাটে পৌঁছানোর পর দুটি পণ্যবাহী ট্রাক ফেরি থেকে নামতে সক্ষম হলেও পল্টুন রামের নিচে ভূমিধসের কারণে বাকি পরিবহনগুলো নামতে পারেনি। এ কারণে শনিবার বিকেল থেকে ওই রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন পরিবহন শ্রমিক ও চালকরা।

চিলমারী রমনা ঘাট
চিলমারী রমনা ঘাট

সোমবার বিকেলে ব্রহ্মপুত্র নদও চিলমারী রমনা ঘাট এলাকায় এসে পৌঁছালে ৪০টি মালবাহী লাইনে দাঁড়িয়ে আছে।
ভুরুঙ্গামারী সোনাহাট স্থলবন্দর থেকে পাথর নিয়ে আসা চালক জাহিদ হাসান ও লালমনিরহাট জেলার মমিনুল ইসলাম জানান, এর আগেও তাদের লোকসান হয়েছে। আজও কষ্ট পাচ্ছি। যদি তাই হয় তাহলে আমরা এভাবে আসব না। এই পথটি পণ্য পরিবহনের জন্য বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠতে শুরু করে। এসব গাড়ির সংখ্যা দিন দিন বাড়তে থাকে। কিন্তু কর্মকর্তাদের কিছু গাফিলতির কারণে আজ এই যন্ত্রণা মেনে নিতে হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসির বিজনেস ম্যানেজার প্রফুল্ল চৌহান জানান, রৌমারী ঘাটে জমি নেমে যাওয়ায় বর্তমানে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। চলছে ঘাট মেরামতের কাজ। কাজ শেষ হলে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক হবে।
বিআইডব্লিউটিএর সিরাজগঞ্জ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী নজরুল ইসলাম জানান, রৌমারী ঘাটে পল্টন রামের নিচে ভূমিধসের কারণে সাময়িকভাবে নৌকা চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘাটে মাটি ভরাটের কাজ চলছে। কাজ শেষ হলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button