রাজনীতিসর্বশেষ

নির্বাচন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্জনের ঘোষণা

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে।

জাতীয় পার্টির (জাপা) সভাপতি জিএম কাদের বলেছেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে।  আমরা সম্পূর্ণ প্রস্তুতি নিচ্ছি। এজন্য আমরা বিভিন্ন স্থানে কাউন্সিল করছি। পরিষদের মাধ্যমে সংগঠনকে শক্তিশালী করা।

নির্বাচন
জিএম কাদের গাইবান্ধা ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে যোগ দেন

প্রার্থী মনোনয়নের পর আমরা বিধানসভা কেন্দ্রগুলোতেও যাচ্ছি। আমি নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিচ্ছি যাতে তারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারে সে ধরনের ব্যবস্থা নিতে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধা জেলা জাপার আহ্বায়ক সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রশিদ সরকার, সদস্য সচিব সারোয়ার হোসেন, গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য শামীম হায়দার পাটোয়ারী প্রমুখ।
জাপা আওয়ামী লীগের সঙ্গে জোট করে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে জিএম কাদের বলেন, ‘এ বিষয়ে আমরা এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। নির্বাচনকে সামনে রেখে বর্জনের ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের প্রচারণা চালিয়ে যাব। যদি আমরা একটি পরিস্থিতি থেকে বেছে নিতে দেখি, আমরা নির্বাচন করব। না হলে আমরা সবাই একসঙ্গে বসে পরে সিদ্ধান্ত নেব।

নির্বাচন
নির্বাচন

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম প্রসঙ্গে জিএম কাদের বলেন, জিনিসপত্রের দাম বাড়ায় আমরা বিস্মিত। আমরা মনে করি এর জন্য সরকার সম্পূর্ণভাবে দায়ী। বলা যায় সরকার ব্যর্থ হয়েছে। সরকারের বেপরোয়া পদক্ষেপ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে ব্যর্থ হচ্ছে। কখনও কখনও তাদের ইচ্ছাশক্তির অভাব বলে মনে হয়। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি দমনে সরকার যতটা গুরুত্ব সহকারে করা দরকার তা করছে বলে আমরা মনে করি না।
জাপা সভাপতি বলেন, ‘ইনশাআল্লাহ আমরা গাইবান্ধার প্রতিটি আসনেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা করব। আমরা বিশ্বাস করি, গাইবান্ধা এক সময় জাতীয় পার্টির শক্ত ঘাঁটি ছিল এবং এখনও আছে। সুষ্ঠ হলে পাঁচটি আসনই পেতে সফল হব।

পরে জিএম কাদের গাইবান্ধা ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে যোগ দেন। এর আগে তিনি ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারে গাইবান্ধায় আসেন। তার সঙ্গে রয়েছেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতারা।

দ্বিবার্ষিক সম্মেলনের বক্তৃতায় অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে জিএম কাদের বলেন, আমরা কারো ক্ষমতার সোপান হতে চাই না। সবার চোখ জাতীয় দলের দিকে। আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ ৩০০ আসনে প্রার্থী দেবে জাতীয় পার্টি।

প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক  জানিয়ে জাতীয় পার্টির সভাপতি বলেন, ‘আমরা ক্ষমতার জন্য লড়াই করব না, জনগণের জন্য লড়াই করব।’ তিনি আরও বলেন, রাজনৈতিক নেতৃত্বের অভাবে উত্তরাঞ্চলে কোনো উন্নয়ন হয়নি। এরশাদ সরকারের আমলে কী হয়েছিল?

আরও পড়ুন

নির্বাচনকালীন সরকারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে তফসিলের পর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button