সর্বশেষআন্তর্জাতিক

ফিলিস্তিনের শিশুরা অভুক্ত, রক্ত ঝরছে

গাজা শহরের আল-ফাখুরা স্কুলে ইসরায়েলি বোমা হামলায় অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে।ফিলিস্তিন গাজাবাসী স্কুলে আশ্রয় নেয়।

ফিলিস্তিন

যারা এই বর্বরোচিত হামলায় বেঁচে গেছেন তারা এখনো আতঙ্কিত।ওই হামলায় আহত মেয়েকে নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার একটি হাসপাতালে আসেন এক মা। তিনি আল-জাজিরাকে বলেন, ‘আমি তখন বাচ্চাদের ডিম খাওয়ানোর চেষ্টা করছিলাম। ফিলিস্তিন দীর্ঘদিন তিনি বঞ্চিত ছিলেন। অনেক কষ্টে কিছু খাবারের ব্যবস্থা করলাম। কিন্তু স্কুলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়। এতে আমার মেয়ে আহত হয়।

ফিলিস্তিন হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কক্ষের এক কোণে বসে ছিলেন আরেক নারী। তিনি বলেন, ‘আমাদের বাড়িতে গোলাবর্ষণের পর আমাদের আর যাওয়ার জায়গা ছিল না। হঠাৎ আমি এসে আশ্রয় নিলাম জাতিসংঘ পরিচালিত একটি স্কুলে। আমি ভেবেছিলাম অন্তত স্কুল নিরাপদ হবে। কিন্তু এখন দেখছি কোনো জায়গাই নিরাপদ নয়। স্কুলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলাও হয়েছে।
ফিলিস্তিন গাজায় অ্যাম্বুলেন্স হামলায় ‘স্তম্ভিত’ জাতিসংঘের মহাসচিবফিলিস্তিন

মহিলা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বললেন, ‘এখানে খাবার, পানি বা বিদ্যুৎ নেই। আমাদের বাচ্চারা খায় না। আমরা এখানে-সেখানে ছুটছি, প্রাণ বাঁচাতে মরিয়া চেষ্টা করছি। বৃষ্টির মতো আমাদের ওপর ক্ষেপণাস্ত্র হামলা। এভাবেই হত্যা করা হয়েছে আমাদের অনাগত সন্তানদের। তারা আহত হয়। যারা বেঁচে আছেন তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। আমাদের অনাগত সন্তানদের রক্ত ​​ঝরছে। আর তা দেখছে গোটা বিশ্ব।

আরো পড়ুন

গাজার পারমাণবিক বোমা হামলাও বিবেচনার পক্ষে ইসরায়েলি মন্ত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button