রাজনীতিসর্বশেষ

ঘেরাও করতে চাইলে ঘেরাও হবে বিএনপি কর্মীদের হুঁশিয়ারি

বিএনপির অবরোধ কর্মসূচি নিয়ে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি

তিনি বলেন, ‘ব্লক করতে চাইলে ব্লক করা হবে। আওয়ামী লীগ তাদের নীতি জোরদার করেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্ব দুর্গে পরিণত হয়েছে। ব্লক করলে ব্লকে আটকে যাবেন। শনিবার বিকেলে রাজধানীর কাওলা এলাকায় আয়োজিত জনসভায় ওবায়দুল কাদির এসব কথা বলেন। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল উদ্বোধন উপলক্ষে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ জনসভার আয়োজন করে। এর আগে গত শনিবার (৭ অক্টোবর) তৃতীয় টার্মিনাল উদ্বোধন করা হয়। খারাপ আবহাওয়ার কারণে সেদিন জনসভা স্থগিত করা হয়েছিল।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে অনশন কর্মসূচির সমালোচনা করেন ওবায়দুল কাদির। বললেন, ‘খবর জানো? বিএনপির অনশনের খবর। মির্জা ফখরুল গণমাধ্যমকে বলেন, তিনি অনশনে আছেন। কিন্তু সকালে সোনারগাঁও থেকে খাবার নিয়ে আসেন এবং নাস্তা সেরে অনশনে বসেন। তিনি রাতে বাড়িতে যাবেন এবং তারপর রাজকীয় খাবার খাবেন।

ওবায়দুল কাদির বলেন, “খালিদা জিয়াকে আদালতে আবেদন করতে হবে। আদালত বিদেশ যাওয়ার অনুমতি দিলে আমরা সরকারকে বাধা দেব না। কারণ, দেশে নিয়ম-নীতি আছে। ওবায়দুল কাদের আরও মন্তব্য করেন, যে বিএনপি মায়ের কোল খালি করে, বোনকে ভাই হারায়, তাদের এই বাংলার মাটিতে আবার ক্ষমতায় আসার অধিকার নেই।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছেন,ঘেরাও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বিডেনের সঙ্গে সাম্প্রতিক সেলফি নিয়ে বিএনপি ঘুমহীন। ঘুম হারাম। দিল্লি সেলফি, নিউইয়র্ক সেলফি, দুটি সেলফি, তারা ঘুমহীন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট শেখ হাসিনা ও শেখ হাসিনার কন্যা একবার নিউইয়র্কে ও একবার দিল্লিতে সেলফি তুললেন কেন? এর পরও তার লজ্জা লাগে না।

বিএনপি যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কথা বিবেচনা করছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ঘেরাও মিছিলে কাজ হয়নি, বিক্ষোভেও কাজ হয়নি, গোলাপবাগে গরুর হাট ও পল্টনে পদযাত্রা হয়নি। এখন আজরায়েলের সাথে কথা বলুন। এটা নিষিদ্ধ করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া নেতাকর্মীদের কী বলবেন? আমেরিকা দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছে যে তারা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে। এখন তাদের কোনো বিকল্প নেই। আমেরিকা যদি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে তাহলেই একমাত্র উপায়।

জনসভায় উপস্থিত আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় পর্যায়ের নেতারা বিএনপির সব ধরনের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য নেতা-কর্মী-সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানান। দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনাকে টানা চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত করতে আবারও ভোটের আহ্বান জানানো হয়েছে।

ঘেরাও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, এখন কার্তিক মাস। বর্তমানে বাজারে চালের দাম সবচেয়ে কম। অথচ এই বাংলাদেশ একসময় ছিল খাদ্য ঘাটতি ও দুর্ভিক্ষের দেশ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন খাদ্যশস্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে।

সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য শাজাহান খান বলেন, বিএনপি-জামায়াত নাশকতা, আগুন ও সন্ত্রাসকে ভয় পায়। তবে ঘেরাও আওয়ামী লীগ কিছুতেই ভয় পায় না। আওয়ামী লীগ ভয়কে জয় করে জয়ী হয়। আওয়ামী লীগ বানরের হামলায় ভয় পায় না।

সভাপতিমণ্ডলীর আরেক সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বিএনপির লজ্জার কিছু নেই। রোজা কার জন্য? খালেদা জিয়া তার কৃতকর্মের শাস্তি ভোগ করছেন। তারপরও শেখ হাসিনা তাদেরকে মানবিকভাবে ঘরে থাকার সুযোগ দিয়েছেন।

ঘেরাও জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য দেন। জনসভায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান। সভা সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি।

আরও পড়ুন

বিএনপির অবরোধ হামলা,গাড়ি পোড়ানো : তথ্যমন্ত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button