সর্বশেষরাজনীতি

বিএনপি এখন আর পালাবার পথ পাবে না: সাধারণ সম্পাদক

বিএনপি অলিগলিতে গেলেও পালানোর পথ পাবে না

দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগ অচলাবস্থায় পড়েছে এবং বিএনপি অলিগলিতে গেলেও পালানোর পথ পাবে না। বুধবার তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আগামী ২৮ অক্টোবর দলের জনসভা সফল করতে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় এসব কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।

বিএনপি
তেজগাঁওয়ে ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরকারের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বক্তব্যের জবাব দেন। তিনি বলেন, ‘গয়েশ্বর বলেছেন, অনুমতি না দিলে অলিগলি দখল করবেন।’ অলিগলি বন্দি হলে গয়েশ্বরবাবুকে স্বাগত জানাতে সব দরজা খোলা থাকবে। মনে নেই, আপনি কোরাল মাছের ঝোল খাচ্ছেন! এখন তোর মাথা খারাপ। আমরা একটি অচলাবস্থা মধ্যে আছে. এমনকি অলিগলিতেও পালানোর পথ পাবেন না।

ওবায়দুল কাদের দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, বিএনপিকে তারা ছাড় দেবেন না। আমি আক্রমণ করব না। আমি এখনো সেটা করিনি। তাদের (বিএনপি) ঈশ্বর অবতারের অনেক ক্ষমতা আছে। অনেকে খবর খায়। আমাদের ওপর হামলা হয়নি। এই সময়ে আমি সতর্ক। আক্রমণ করলে পাল্টা আক্রমণ করা হবে। কোনো শিথিলতা দেওয়া হবে না। কেন ছেড়ে? আমাদের একসাথে মন্দ বন্ধ করতে হবে।

দলীয় নেতাদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির নরম কথায় আস্থা রাখবেন না। বিএনপির মুখে মধু হৃদয়ে বিষ। তারা বিশ্বাসঘাতক। এই দলটিকে বিশ্বাস করা যায় না। প্রয়োজনে সতর্ক থাকুন।

ওবায়দুল কাদের মন্তব্য করেন, এটা অশুভ শক্তির হাত থেকে দেশকে মুক্ত করার আন্দোলন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শপথ নিয়েছে। এবার শেষ পর্যন্ত তাদের হারতেই হবে।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, আমাদের বিজয়ে বারবার হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে। গণতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিজয় সুসংহত করতে হলে প্রধান শত্রু, সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদের চালিকা শক্তি বিএনপিকে পরাজিত করতে হবে। নইলে জয় নিশ্চিত হবে না। তারা আমাদের বিজয়কে বারবার রক্তাক্ত করেছে।

বিএনপি
ওবায়দুল কাদের

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, জাহাঙ্গীর কবির নানক ও কামরুল ইসলাম; যুগ্ম মহাসচিব মেহবুব উল আলম হানিফ ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম; সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম; ঢাকা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফী ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির; ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস; ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বেনজীর আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামান; ঢাকা মহানগর উত্তরের মহাসচিব এস এম মান্নান প্রমুখ।

আরও পড়ুন
একটি মহল অনির্বাচিত সরকার আনার ষড়যন্ত্র করছে: সভানেত্রী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button