বিশেষসর্বশেষ

সিলেটের কিনব্রিজের সংস্কার কাজ শেষ না হওয়ায় সমস্যা বেড়েছে

নির্ধারিত সময়ে মেরামত কাজ শেষ না হওয়ায় মানুষের সমস্যা বেড়েছে

সিলেটের কিনব্রিজ মেরামতের কাজ দুই মাসের মধ্যে শেষ করার ঘোষণা দেওয়া হয়।

কিনব্রিজ
সিলেটের কিনব্রিজ

সিলেটের কিনব্রিজ মেরামতের কাজ দুই মাসের মধ্যে শেষ করার ঘোষণা দেওয়া হয়। কিন্তু নির্ধারিত দুই মাস অতিবাহিত হলেও মেরামত ও সংস্কার কাজ শেষ করতে পারেনি বাংলাদেশ রেলওয়ের পূর্বাঞ্চল প্রকৌশল বিভাগ। এখন অধিদপ্তর বলছে, কিনব্রিজ মেরামতে দেড় মাস সময় লাগবে। সেক্ষেত্রে নভেম্বর পর্যন্ত কিনব্রিজ যানবাহন ও পথচারীদের জন্য বন্ধ থাকবে।

নির্ধারিত সময়ে মেরামত কাজ শেষ না হওয়ায় মানুষের সমস্যা বেড়েছে। মেরামত কাজের কারণে দুই পাশের বাসিন্দা ও পথচারীরা সমস্যায় পড়েছেন। সেতু দিয়ে যানবাহন চলাচল না হওয়ায় মানুষকে দূরপাল্লায় যাতায়াত করতে হয়। অনেকে ঝুঁকি নিয়ে সেতুর নিচ দিয়ে নৌকায় করে নদী পার হচ্ছেন। মেরামত, সংস্কার ও নির্মাণ কাজের জন্য ১৬ আগস্ট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত দুই মাসের জন্য সিলেটের কিনব্রিজ বন্ধ রাখা হয়।

এরপর পথচারীদের চলাচল বন্ধে সেতুর দুই পাশে টিনের বেড়া বসানো হয়। রেলওয়ে প্রকৌশল অধিদফতরের ঘোষণা অনুযায়ী, দুই মাস ধরে চলমান সেতুতে যান চলাচল রোববার শেষ হয়েছে। দক্ষিণ সুরমার ভরতখলা এলাকার বাসিন্দা সঞ্জীব চক্রবর্তী জানান, তিনি দক্ষিণ সুরমা থেকে প্রতিদিন দুই থেকে তিনবার সুরমা নদী পার হয়ে শহরের উত্তর দিকে যান। ব্রিজটি যখন প্রথম মেরামত করা হয় তখন তিনি অন্য ব্রিজ থেকে শহরে প্রবেশ করতেন। এতে প্রতিদিন প্রায় ১০০ টাকা খরচ হয়। সেতু ঠিক থাকলে এত টাকা খরচ হতো না। তিনি হাঁটতে পারতেন। কিনব্রিজের তত্ত্বাবধায়ক সংস্থা হল সিলেট সড়ক ও গণসড়ক সওজ অধিদপ্তর। রেলওয়ে সেতু বিভাগ সংস্কারের কাজ করছে। সওজ সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের সিলেট বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের সমন্বয় সভায় জরাজীর্ণ কিনব্রিজের সংস্কার নিয়ে আলোচনা হয়।

কিনব্রিজ
কিনব্রিজ

সেখানে সেতু সংস্কারের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিন সদস্যের একটি কমিটি করা হয়। পরে সেতুটি মেরামতের জন্য তহবিল বরাদ্দ চেয়ে মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন সুজ। ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে সিলেটের সওজ ২ কোটি ১৫ লাখ টাকা বরাদ্দ পায়। একই বছরের জুনে বরাদ্দ স্থানান্তর করা হয় রেলওয়ের সেতু বিভাগে। তবে নানা জটিলতায় সংস্কারের কাজ করা হচ্ছে না। পথচারীরা বলছেন, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল ও রেলস্টেশনে যাতায়াতের সহজ উপায় কিনব্রিজ। সেতু বন্ধ থাকায় পথচারীদের ঘুরে অন্য পথ ধরতে হচ্ছে। এটি সময় এবং অর্থের অপচয়। তাদের কষ্টও বাড়ছে। ইউনূস অ্যান্ড ব্রাদার্স নামের এক ঠিকাদারকে সেতু মেরামতের কাজ দেওয়া হয়েছে। সংগঠনের প্রতিনিধি। শিপন জানান, কিনব্রিজ মেরামতের কাজ চলছে।

আরও সদৃশ খবর পেতে ক্লিক করুন
গোপালগঞ্জে বাস ও মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে যুবকের মৃত্যু

দুই মাসের মধ্যে তা শেষ করার কথা থাকলেও সেতুর দুই পাশই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এটি নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি সময় নেয়। শীঘ্রই সেতুর মেরামতের কাজ শেষ করতে আরও শ্রমিক মোতায়েন করা হচ্ছে। সোমবার ৪৫ জন শ্রমিক সেতু মেরামতের কাজে নিয়োজিত ছিলেন।

 

এ বিষয়ে রেলওয়ে সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (পূর্বাঞ্চল) জিশান দত্তের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। নাম প্রকাশ না করার শর্তে রেলওয়ে সেতু বিভাগের  কয়েকদিনের মধ্যে প্রজ্ঞাপন প্রকাশিত হবে এবং আগামী দেড় মাস সেতুতে যানবাহন ও পথচারী চলাচল বন্ধ থাকবে। ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সেতু বন্ধ রাখার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। সেতুর দুই পাশে ক্ষতিগ্রস্ত প্যানেল থাকায় সেগুলো মেরামতে সময় লাগছে বেশি।

 

তবে ৩০ নভেম্বরের মধ্যে কিনব্রিজ পথচারীদের জন্য খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। সেতুটি কার্পেটিং করার পর যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হবে। ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সালে, সেতুটি বেহাল অবস্থায় পড়ে গেলে, সিলেট সিটি কর্পোরেশন উভয় পাশে লোহার বেড়া তৈরি করে সমস্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। তবে নাগরিক বিক্ষোভের কারণে ৫২ দিন পর সেতুটি যান চলাচলের জন্য খুলে দিতে হয়।

কিনব্রিজ
কিনব্রিজ

সুরমা নদী সিলেট শহরকে উত্তর ও দক্ষিণে দুই ভাগে বিভক্ত করেছে। দুটি প্রসারিত সংযোগের জন্য ১৯৩৬ সালে নদীর উপর একটি ধনুক আকৃতির সেতু নির্মিত হয়েছিল। ১,১৫০  ফুট দীর্ঘ এবং 18 ফুট চওড়া লোহার সেতুটিকে কিনব্রিজ বলা হয়। এটি এখন দেশে বিদেশে সিলেটের প্রতীক হিসেবে পরিচিত। তবে যানবাহনের ওজনের কারণে সেতুটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়লে ঐতিহ্যবাহী কাঠামো রক্ষার জন্য কয়েক বছর আগে এখান থেকে সব ধরনের ভারী যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে সেতুর ওপর দিয়ে হালকা যানবাহন চলাচল করে।এরপর পথচারীদের চলাচল বন্ধ করতে সেতুটির দুই পাশে টিনের বেড়া দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন
উদ্বোধন করা হলো ফার্মগেটের ঐতিহাসিক ফুট ওভারব্রিজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button