খেলাসর্বশেষ

১৯১ রানে অলআউট পাকিস্তান ৩৬ রানে শেষ ৮ উইকেট হারিয়েছে

ভারতের বিপক্ষে নাটকীয় পরাজয়ের পর ১৯১ রানে অলআউট পাকিস্তান

বিশ্বকাপের ‘সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ’ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে নাটকীয় পরাজয়ের পর ১৯১ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান।

অধিনায়ক বাবর আজম আউট হওয়ার আগে তাদের স্কোর ছিল ২৯.৩ ওভারে ২ উইকেটে ১৫৫ রান। আহমেদাবাদের স্লো উইকেট ঠিক ‘হাই স্কোরিং’ না হলেও শুরুতেই থামে পাকিস্তান।

১৯১ রানে অলআউট পাকিস্তান

তবে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার ইমাম-উল-হক ও আবদুল্লাহ শফিক জসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ সিরাজের বিপক্ষে ভালো শুরু করেন। উইকেটে ফাস্ট বোলারদের জন্য খুব বেশি কিছু ছিল না, উভয় ওপেনারই তাদের লাইন এবং লেন্থ সঠিক হতে দেননি। প্রথম ৭ ওভারে মারেন ৭টি চার। গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান শফিক, যিনি সিরাজের ক্রস-সিম ডেলিভারিতে হেরেছিলেন, এমনকি আম্পায়ারের এলবিডব্লিউ সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করার প্রয়োজনও বোধ করেননি। অষ্টম ওভারের শেষ বলে ৪১ রানে থেমে যায় উদ্বোধনী জুটি।

তবে বাবরের সঙ্গে ইমামের জুটি সেভাবে গড়ে ওঠেনি। ভালো শুরুর পর ৩৮ বলে ৩৬ রান করা ইমাম অফ স্টাম্পের বাইরে হার্দিক পান্ডিয়ার বলে থামিয়ে দেন। প্রথম পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পর দ্বিতীয় শুরুতেই আরও একটি উইকেট হারিয়েছে ভারত। কিন্তু বাবর ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের জুটি তাদের হতাশ করেছে।

বাবর, স্পিনারদের বিরুদ্ধে সতর্ক, পান্ডিয়া, শার্দুল ঠাকুর এবং সিরাজের বিরুদ্ধে সুবিধা নেন, তার ৭টি চারের মধ্যে ৬টি এই তিন ফাস্ট বোলারের বিরুদ্ধে এসেছে। কুলদীপ সপ্তম চার মারেন, যা ভারতের বিরুদ্ধে সপ্তম ইনিংসে তার প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রিজওয়ানের সাথে বিশ্বকাপে গত দুই ম্যাচে ১৫ রান করা বাবরকে ফিরিয়ে নিয়ে পাকিস্তান বড় স্কোরের আশাবাদী ছিল। এই দুজনের জুটি মধ্য ওভারের বড় অংশে পাকিস্তানের আধিপত্য বজায় রেখেছিল।

কিন্তু ক্রস সীমের দৈর্ঘ্য নিয়ে থার্ডম্যানে অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসের সাথে খেলে নিজের হুমকি তৈরি করেন সিরাজ। বলটা ইচ্ছে মতো উঁচুতে ওঠেনি। ব্যাট বন্ধ করে খেলার চেষ্টা ব্যর্থ হয় এবং ৫০ রান করার পর বোল্ড হন। কিন্তু তখনও মনে হয়নি বাবরের উইকেট পাকিস্তানের বাঁধ ভাঙবে।

কুলদীপের জন্য এক ওভারে সবকিছু বদলে যায়, যিনি গত বিশ্বকাপের পর ১১ থেকে ৪০ ওভারের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন। তবে ততক্ষণ চাপ প্রয়োগ করলেও উইকেটের পর উইকেট দেখা যায়নি। LBW সৌদ শাকিলকে এখন লাইনে থাকতে বলা হয়েছে, রিভিউ ভারতকে একটি উইকেট দিয়েছে। একই ওভারে ইফতিখার আহমেদ লেগ স্টাম্পের বাইরে বলটি সুইপ করে বলটিকে স্টাম্পে ডেকে পাঠান। পাকিস্তানের মিডল অর্ডারের পতন নিশ্চিত হয়েছিল যখন পরের ওভারে, বুমরাহের ইনবাউন্ড বল রিজওয়ানের ব্যাট এবং প্যাডের একটি বড় ফাঁক দিয়ে চলে যায় এবং স্টাম্প ভেঙে যায়। রিজওয়ান পারেননি, তখন বুমরাহের সিম-আপ ডেলিভারিটাও শাদাবের জন্য কঠিন ছিল।

তবে পাকিস্তান কাউকে নিরাশ করেনি, এরপর উইকেটের আভাস পেয়েছেন জাদেজাও। বাঁহাতি স্পিনার হারিস রউফের বলে এলবিডব্লিউ আউট হলে পাকিস্তানের ইনিংস শেষ হয়। রিভিউয়ের মাধ্যমে এই উইকেটও পেয়েছে ভারত। বোলিংয়ে পরিবর্তন থেকে শুরু করে রিভিউ, সবকিছুই ম্যাচের প্রথম ইনিংসে রোহিত শর্মা ও ভারতের পক্ষে যায়।

আরও পড়ুন

কোহলি-রোহিত-উইলিয়ামসনের যে গুণ ভালো লাগে বাবরের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button